দুই বাংলাকে আবারো জুড়ে দিলো এই শিক্ষক

A primary teacher reunited the two Bengalis with the melody of the song : দুই বাংলাকে আবারো জুড়ে দিলো এই শিক্ষক । বিস্তারিত জানতে লেখাতটি পড়ুন

দুই বাংলাকে আবারো জুড়ে দিলো এই শিক্ষক

A primary teacher reunited the two Bengalis with the melody of the song : বলা হয়ে থাকে বিশ্বে যদি শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হয় তাহলে গান এবং সুরকে আপন করে নাও । একমাত্র গান ও সুরই পারে পৃথিবীতে শান্তি আনতে । এমনই এক মহান কাজ অত্যন্ত অনাড়ম্বরভাবেই করে চলেছেন এপার বাংলার এক শিক্ষক । নাম অভিজিত লাহিড়ী । পেশা শিক্ষকতা হলেও , ভালবাসার জায়গা হল গান । আর এই টানেই একের পর এক গান লিখে চলেছেন এবং সুর দিয়ে চলেছেন । এবং সেই সুরে মুগ্ধ হচ্ছেন এপার বাংলা ও ওপার বাংলার হাজার হাজার সঙ্গীতপ্রিয় মানুষেরা ।

সম্প্রতি তার লেখা ও সুর করা গানই আবারো মিলিয়ে দিলো দুই বাংলার আপামর বাঙালিদের । অভিজিৎ লাহিড়ীর কথা ও সুরে “বধূ” গানটি সুপ্তি মিউজিক  চ্যানেলে এই মাসের ত্রিশ তারিখে মুক্তি পেতে চলেছে । বাংলাদেশের স্বনামধন্য গায়ক কাজী শুভ গানটি গেয়েছেন । মিউজিক কম্পজার সাফি মাহমুদ রবিন । গানটির মিউজিক ভিডিও পরিচালনা করেছেন ডিরেক্টর সৈকত রেজা ।

 গানটি গ্রাম বাংলার বধূ কে নিয়ে একটি খুব মিষ্টি ফোক  গান। যেখানে দুই বাংলা মিশে একাকার হয়ে গেছে। গানটি তে একটি সুন্দর প্রেমের গল্পঃ তুলে ধরা হয়েছে। তাই এই গানটিও শ্রোতাদের মন খুব সহজেই মন জয় করবে বলে বিশ্বাস রাখেন শিক্ষক অভিজিৎ লাহিড়ী ।

 ‘বধু’ গানটির শুটিং হয়েছে বাংলাদেশের সিলেটে ও আরো অনেকগুলো মনোরম পরিবেশে। ভিডিও টিও যথেষ্ট যত্ন সহকারে বানানো হয়েছে । সবমিলিয়ে সকলের জন্য একটা মিষ্টি মধূর আনন্দের গান অপেক্ষা করছে- “বধূ ও বধূরে মন আমার দেউলিয়া তোর তরে'” ।

 পশ্চিমবঙ্গের মালদা জেলার বাসিন্দা অভিজিৎ লাহিড়ী  পেশায় শিক্ষক । তবে শিক্ষকতার পাশাপাশি গান লেখেন ও সুর করেন। তিনি মালদা জেলার গাজোল ব্লকের মদনাহার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেন।  এই গানটি ছারাও তিনি এর আগেও অনেক গান লিখেছেন ও সুর করেছেন, যেগুলি দুই বাংলায় বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

  কিছুদিন আগেই ভারতের জী মিউজিক বাংলা চ্যানেলে লক ডাউনে পরিযায়ী শ্রমিক দের দুর্দশা নিয়ে “শহরে শহরে কান্না” গানটি লিখেছেন ও সুর করেছেন এই শিক্ষক । এই গানটিও অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ।  গানটি গেয়েছিলেন গায়ক অজিত সরকার । আর এই গায়ক অজিত সরকারের কাছেই গান শেখেন অভিজিৎ লাহিড়ী ।

এছাড়াও এই মাসেই বাংলাদেশের CMV চ্যানেল থেকে অভিজিৎ লাহিড়ীর কথা ও সুরে প্রকাশ পেয়েছে ” আমি কি আমাকে” গানটি। গানটি গেয়েছেন গায়ক রবিন।বাংলাদেশের অনেকগুলি নাটক যেমন পতঙ্গ, খবরওয়ালা, ফ্রাইড রাইস এর জন্য গান লিখেছেন অভিজিৎ লাহিড়ী। গানগুলির মধ্যে বেশ জনপ্রিয় “পরী তুই হইলি না আমার” । অভিজিৎ লাহিড়ীর নিজের লেখা ও সুর করা গান “তুই মন বৃষ্টি” গানটি খুব ভালো, গানটি গেয়েছেন অর্পণ কর্মকার ও প্রকাশ পেয়েছে ফোক স্টুডিও বাংলা থেকে।

লক ডাউনে পরিযায়ী শ্রমিক দের দুর্দশা যেমন প্রকাশ পেয়েছে অভিজিৎ লাহিড়ীর লেখা ও সুর করা গানের মাধ্যমে। ঠিক তেমনি ” বধূ” র মত মিষ্টি একটি গান ও শ্রোতাদের খুব ভালো লাগবে আশা করা যায়।

 সুপ্তি মিউজিক চ্যানেলের কর্ণধার এবং গানটির সাথে জড়িত সকলে খুব আশাবাদী। সকলের জন্য শুভকামনা রইল ।এবং বিশেষ করে শিক্ষক অভিজিৎ লাহিড়ীর প্রতি রইল অনেক অনেক ভালোবাসা ও শুভেচ্ছা । যেন আগামীদিনেও এভাবেই গানের সুরে দুই বাংলাকে বেঁধে রাখেন ।

সাম্প্রতিক পোস্ট সমুহ

  • দুই বাংলাকে আবারো জুড়ে দিলো এই শিক্ষক
    দুই বাংলাকে আবারো জুড়ে দিলো এই শিক্ষক A primary teacher reunited the two Bengalis with the melody of the song : বলা হয়ে থাকে বিশ্বে যদি শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হয় তাহলে গান এবং সুরকে আপন করে নাও
  • করোনা মোকাবিলায় ভারত সরকার এই অ্যাপটি তৈরি করল
    করোনা মোকাবিলায় ভারত সরকার এই অ্যাপটি তৈরি করল বিশ্বের ত্রাস এখন করোনা ভাইরাস । আর সেই ভাইরাস থেকে বাঁচতে ভারত সরকার তৈরি করল একটি অ্যাপ । নাম আরোগ্য সেতু / Aaragya Setu. প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই অ্যাপ
  • করোনা মোকাবিলায় প্রিয় দেশবাসীর উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রীর বার্তা
    করোনা মোকাবিলায় প্রিয় দেশবাসীর উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রীর বার্তা Coronavirus India Narendra Modi address to the nations : যত সময় পার হচ্ছে করোনা পরিস্থিতি ততই ভয়ানক হয়ে উঠছে । মৃত্যু মিছিল বেড়েই চলেছে । আমাদের দেশেও চিত্রটা একই ।
  • NIOS deled ক্যান্ডিডেটরা পরতে চলেছেন বিপদে । দেখে নিন কেন ?
    জনপ্রিয় হিন্দি পত্রিকা দৈনিক জাগরন এ প্রকাশিত হয়েছে NIOS থেকে যেসকল ক্যান্ডিডেট Deled করেছেন যাদের উচ্চ মাধ্যমিকে ৫০ % নেই তারা পরতে চলেছেন বড়সড় সমস্যায় । স্বয়ং NIOS চেয়ারম্যান এই কথা জানিয়েছেন দৈনিক জাগরন পত্রিককে । NIOS
  • রাজ্যের মাদ্রাসা গুলি এবার এক পোর্টাল ভুক্ত
    রাজ্যের মাদ্রাসা গুলি এবার এক পোর্টাল ভুক্ত সময় যত এগিয়েছে ডিজিটাল জগতের ছাপ মানুষের জীবনে ততই প্রভাব ফেলেছে। প্রশাসনিক কাজের জন্য ডিজিটাল নির্ভরতা অনেক প্রয়োজনীয় হয়ে উঠেছে। সাথে সাথে কাজকেও করেছে অনেক সহজ ও গ্রহণযোগ্য। পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *